ব্যাবসা বাণিজ্য লেবেলটি সহ পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে৷ সকল পোস্ট দেখান
ব্যাবসা বাণিজ্য লেবেলটি সহ পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে৷ সকল পোস্ট দেখান

রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯

পল্লী বিদ্যুতের প্রি-পেইড বিলও বিকাশে পরিশোধ করা যাবে

পল্লী বিদ্যুতের প্রি-পেইড বিলও বিকাশে পরিশোধ করা যাবে

সম্প্রতি দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে এ বিষয়ে একটি চুক্তি হয়েছে বলে বিকাশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলঅ হয়েছে।
বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের সচিব আসাফউদ্দৌলা এবং বিকাশের চিফ কর্মাশিয়াল অফিসার মিজানুর রশীদ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন।
চুক্তির আওতায় এখন পোস্টপেইড গ্রাহকদের পাশাপাশি পল্লী বিদ্যুতের প্রিপেইড গ্রাহকরাও বিকাশে যে কোন সময় যেকোন স্থান থেকে ঝামেলা ছাড়াই প্রিপেইড মিটার রিচার্জ করতে পারবেন।
এর ফলে সারাদেশে পল্লী বিদ্যুতের পোস্টপেইড এবং প্রিপেইড সেবা ব্যবহারকারী পৌনে তিন কোটি গ্রাহকের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ আরও  সহজ হল বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।
“নতুন এই সেবা চালু হওয়া উপলক্ষ্যে আগামী ছয় মাস পল্লী বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার রিচার্জ করতে  গ্রাহককে  বাড়তি কোন চার্জ দিতে হবে না।”
প্রিপেইড মিটারের ব্যালেন্স শেষ হওয়া মাত্রই বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তাই প্রয়োজন হয় তাৎক্ষণিক রিচার্জের। এক্ষেত্রে বিকাশে তাৎক্ষণিক যে কোন স্থান থেকে বিল পরিশোধের সুযোগ প্রিপেইড গ্রাহকদের আরও  নিরবিচ্ছিন বিদ্যুৎ সেবা উপভোগে সহায়তা করবে।
এ লক্ষ্যেই সারাদেশে পল্লী বিদ্যুতের ৯ লাখেরও বেশি প্রিপেইড মিটারের গ্রাহকের বিল পরিশোধ ঝামেলামুক্ত, সহজ, সাশ্রয়ী এবং নিরাপদ করতে দেশের বৃহত্তম মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ এবং পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের  মধ্যে চুক্তি হয়েছে।
চুক্তি সই অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদস্য (বিতরণ ও পরিচালনা) জহিরুল ইসলাম, সদস্য( পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মহিউদ্দিন আহমদ, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী অঞ্জন কান্তি দাশ ও হেদায়েতুল ইসলাম, পরিচালক (অর্থ) হোসেন পাটোয়ারী, সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট ফাহিম উদ্দিন এবং বিকাশের জেনারেল ম্যানেজার, বিজনেস ডেভেলপমেন্ট এস এম বেলাল আহমেদ, ম্যানেজার আবু সালেহ মো: মঈনউদ্দিন এবং ম্যানেজার তানভীর খান।
বিকাশ অ্যাপের পে-বিল অপশন থেকে পল্লী বিদ্যুৎ, প্রিপেইড মিটার নির্বাচন করে গ্রাহক নম্বর ও টাকার পরিমান দিয়ে খুব সহজেই বিল পরিশোধের সুযোগ পাবেন গ্রাহক। তাৎক্ষনিক ভাবেই বিল পরিশোধ হয়ে যাবে এবং গ্রাহক পুনরায় বিদ্যুৎ সেবা পাবেন।

রবিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯

বিজয়ের মাসে বিকাশের ১৬ টাকায় ১৬ টাকাই ক্যাশব্যাক

বিজয়ের মাসে বিকাশের ১৬ টাকায় ১৬ টাকাই ক্যাশব্যাক

বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ ঘোষণা দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বলেছে,  বিজয়ের মাসে বিকাশ অ্যাপ দিয়ে ১৬ টাকা মোবাইল রিচার্জ করলে বা অন্য বিকাশ অ্যাকাউন্টে ১৬ টাকা পাঠালে গ্রাহকের কোনো খরচই হবে না।
বিকাশ অ্যাপে হোমস্ক্রিনের উপর দিকে রয়েছে সেন্ড মানি বা মোবাইল রিচার্জ অপশন। যেখান থেকে সহজেই গ্রাহকরা এই অফারটি নিতে পারছেন।
অফারটি চলবে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত; যা সকল বিকাশ অ্যাপ ব্যবহারকারীর জন্য প্রযোজ্য।
একজন গ্রাহক অফার চলাকালীন একবারই এই ক্যাশব্যাক সুবিধা পাবেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।
বিকাশ ব্র্যাক ব্যাংক, যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক মানি ইন মোশন, বিশ্ব ব্যাংক গ্রুপের অর্ন্তগত ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশন-আইএফসি, বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এবং অ্যান্ট ফিনান্সিয়াল এর যৌথ মালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠান।
২০১১ সাল থেকে বাংলাদেশ ব্যাংক নিয়ন্ত্রিত পেমেন্ট সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল ফাইনান্সিয়াল সার্ভিস দিয়ে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।
মিরসরাইয়ে ইস্টার্ন ব্যাংকের উপশাখা

মিরসরাইয়ে ইস্টার্ন ব্যাংকের উপশাখা

সম্প্রতি মিরসরাইয়ে হাজি রেনু মিয়া মাস্টার শপিং কমপ্লেক্সে উপশাখাটির উদ্বোধন করা হয়েছে বলে ইবিএলের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
ব্যাংকের রিটেইল ও এসএমই ব্যাংকিং প্রধান এম খোরশেদ আনোয়ার এর বুউদ্বোধন করেন।
এই উপশাখা থেকে গ্রাহকদের নিয়মিত ব্যাংকিং সেবা দেওয়া হবে।
অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমীন, পৌর মেয়র গিয়াস উদ্দিন, ইবিএল লায়াবিলিটি ও ওয়েলথ ম্যানেজমেন্ট প্রধান সৈয়দ জুলকার নাইন, এজেন্ট ব্যাংকিং প্রধান মো. বিন মজিদ খান উপস্থিত ছিলেন।
মোবাইল ব্যাংকিং, এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের পর ব্যাংকিং সেবায় যুক্ত হয়েছিল ‘ব্যাংকিং বুথ’।সেই ‘ব্যাংকিং বুথ’ই এখন ‘উপশাখা’ নামে পরিচিতি পাবে।
গত ৩ ডিসেম্বর এক সার্কুলারে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, ব্যাংকিং বুথ’ এর কর্মপরিধি ও পরিচালন পদ্ধতি বিবেচনায় এবং ব্যাংকিং বুথের কার্যক্রম ও সেবার পরিধি জনসাধারণের নিকট অধিকতর স্পষ্ট করার প্রয়াসে এ মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে যে, ‘ব্যাংকিং বুথ’ নামের ব্যবসা কেন্দ্রসমূহ ‘উপশাখা’ নামে পরিগণিত হবে।”

সোমবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৯

পেঁয়াজ ৬০-৭০ টাকায় আসবে দাবি বাণিজ্যমন্ত্রীর, ব্যবসায়ীদের ভিন্নমত

পেঁয়াজ ৬০-৭০ টাকায় আসবে দাবি বাণিজ্যমন্ত্রীর, ব্যবসায়ীদের ভিন্নমত

আগামী ১০ দিনের মধ্যে পেঁয়াজের বড় চালান আসার পর এর কেজিপ্রতি দাম নেমে আসবে ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বলে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানিয়েছেন। অবশ্য ব্যবসায়ীরা বলেছেন ভিন্ন কথা। তাদের দাবি পেঁয়াজের দাম আরো কমে যাবে।
পেঁয়াজের দাম প্রসঙ্গে গতকাল টিপু মুনশি বলেছেন, ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি আবার চালুর ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কথা দিয়েছিল। দুর্ভাগ্য, তারা রপ্তানি চালু করেনি। ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধই মূলত দাম বাড়ার প্রধান কারণ। তিনি বলেন, এ সময়ে যেখানে মাসে এক লাখ টন পেঁয়াজ আসত, সেখানে ভারত বন্ধ করার পর ২৫ হাজার টন এসেছে। ৭৫ হাজার টনই ঘাটতি। আর ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাব তো আছেই।
এফবিসিসিআই আয়োজিত গতকালের সভায় বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি ভেবেছিলাম অন্য দেশ থেকে জাহাজে পেঁয়াজ আনতে সময় লাগবে ১২ থেকে ১৪ দিন। এটা যে ২৪-২৫ দিন লাগবে, ধারণা ছিল না।’
অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ৬০-৭০ টাকায় নেমে আসবে বললেও ব্যবসায়ীরা মন্ত্রীকে জানান, জাহাজে আনা পেঁয়াজের খরচ কম পড়বে। তখন বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তার পরও আপনাদের ভয়ে কিছুটা বাড়িয়ে বললাম।’ তিনি জানান, চট্টগ্রাম বন্দর পর্যন্ত এসব পেঁয়াজের কেজিপ্রতি খরচ পড়বে ৩২ টাকা।
ব্যাংকের অনুমোদন ছাড়াই আন্তর্জাতিক লেনদেন হবে ক্রেডিট কার্ডে

ব্যাংকের অনুমোদন ছাড়াই আন্তর্জাতিক লেনদেন হবে ক্রেডিট কার্ডে

আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ডে অবৈধ লেনদেন বন্ধে কড়াকড়ি আরোপের পর ভোগান্তিতে পড়েছেন তথ্য-প্রযুক্তি খাতের ব্যবসায়ীসহ সাধারণ গ্রাহকরা। ব্যাংকগুলোরও ক্রেডিট কার্ড ব্যবসা হারানোর শঙ্কা তৈরি হয়েছে। তাই গ্রাহকদের ভোগান্তি কমিয়ে আনতে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর সঙ্গে আলোচনার উদ্যোগ নিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ বিষয়ে আগামীকাল সোমবার সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগের নির্বাহী পরিচালকের সভাপতিত্বে ওই বৈঠকে বেসিসের প্রতিনিধি ছাড়াও ১১টি ব্যাংকের কার্ড বিভাগের কর্মকর্তারা অংশ নেবেন।
বৈঠকে আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ডে লেনদেনে কড়াকড়ির পর গ্রাহকদের কী ধরনের সমস্যা হচ্ছে সেটি আলোচনা হবে। বিশেষ করে গ্রাহকের ভোগান্তি কমাতে ফরম পূরণ করে ব্যাংকের পূর্বানুমোদন নেওয়ার যে বাধ্যবাধকতা আরোপ করা হয়েছে, সেটি তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত আসতে পারে। এর পরিবর্তে বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে একটি স্বয়ংক্রিয় সফটওয়্যার চালুর প্রস্তাব দেওয়া হতে পারে, যেই সফটওয়্যারের মাধ্যমে বৈধ সব লেনদেনই তাত্ক্ষণিক সম্পন্ন হবে। আর যেসব লেনদেন অবৈধ বা আইনসিদ্ধ নয়, সেসব লেনদেনের মার্চেন্ট ক্যাটাগরি কোড (এমসিসি) সফটওয়্যারেই ব্লক করা থাকবে। ফলে কেউ চাইলেও অবৈধ লেনদেন করতে পারবে না। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্থানীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের বিজ্ঞাপন প্রদান বাবদ একটি নির্দিষ্ট অঙ্কের বৈদেশিক মুদ্রা ছাড়করণের অনুমোদন প্রদান এবং ভ্রমণের দলিলাদি ব্যতীত ভ্রমণ কোটার এনডোর্সমেন্ট এবং অব্যবহৃত ভ্রমণ কোটা ভ্রমণ ব্যতীত অন্য কোনো উদ্দেশ্যে ব্যবহার বন্ধ করার বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা হবে।
এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে কালের কণ্ঠকে বলেন, ক্রেডিট কার্ডের গ্রাহকদের ভোগান্তি কমাতে বিকল্প হিসেবে একটি স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা চালুর বিষয়ে ভাবা হচ্ছে। এখন যেমন ক্রেডিট কার্ডে অবৈধ লেনদেন বন্ধে ফরম পূরণ করে জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে, বিকল্প ব্যবস্থায় আর ফরম পূরণ করা লাগবে না। তখন স্বংক্রিয়ভাবেই যেসব লেনদেন অবৈধ সেটা বন্ধ হয়ে যাবে। সফটওয়্যারেই অবৈধ লেনদেনের কোড ব্লক করে রাখা হবে। অন্যদিকে বৈধ অন্য সব লেনদেন যখন খুশি তখন করা যাবে। এ বিষয়ে ব্যাংকগুলোর সঙ্গে এরই মধ্যে কথা হয়েছে। নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে এটা করতে ব্যাংকগুলোও রাজি আছে।
আন্তর্জাতিক ক্রডিট কার্ড ব্যবহার করে অনলাইনে বিদেশ থেকে পণ্য বা সেবা কেনার ক্ষেত্রে কড়াকড়ি আরোপ করে গত ১৪ নভেম্বর সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই সার্কুলারে বলা হয়, আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ড দিয়ে অনলাইনে বিদেশি পণ্য বা সেবা কিনতে হলে গ্রাহককে অনলাইন ট্রানজেকশন অথরাইজেশন ফরম (ওটিএএফ) পূরণ করে মোবাইল অ্যাপ বা ইন্টারনেট প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বা হার্ড কপি ব্যাংকে জমা দিতে হবে। ব্যাংক যাচাই-বাছাই করে অসংগতি না পেলে ক্রেডিট কার্ডকে শুধু সেই লেনদেনের জন্য সক্রিয় করে দেবে। ব্যাংকের পূর্বানুমোদন ছাড়া ওই কার্ড কাজ করবে না। মূলত অবৈধ লেনদেন বন্ধ ও অর্থপাচার রোধের যুক্তি দেখিয়ে এ সার্কুলার জারি করা হয়েছে। কিন্তু বাস্তবে দ্বৈত মুদ্রার কার্ডের মাধ্যমে অর্থপাচারের কোনো তথ্য বা ঝুঁকি দেশি-বিদেশি কোনো প্রতিবেদন বা প্যানেল আলোচনায় উঠে আসেনি বলে জানা গেছে।
সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, আন্তর্জাতিক কার্ড ব্যবহারে এ ধরনের পূর্বানুমোদনের বিধান বিশ্বের কোথাও নেই। সুনির্দিষ্ট কোনো খাতে লেনদেন বন্ধ করতে চাইলে সংশ্লিষ্ট মার্চেন্ট ক্যাটাগরি কোড (এমসিসি) বন্ধের মাধ্যমেই সম্ভব। কিন্তু তা না করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ওই সার্কুলারে সব লেনদেনের বিষয়ে ওটিএএফ পূরণ করতে বলা হয়েছে। এতে গ্রাহকরা আন্তর্জাতিক কার্ড ব্যবহারে নিরুৎসাহিত হবেন এবং নগদ ডলার বহনের ঝুঁকি নেবেন বলে মত তাঁদের। তা ছাড়া ওটিএএফ অনুমোদনের জন্য ব্যাংকগুলোকে সার্বক্ষণিক অফিস চালু রাখতে হতে পারে, যা বাস্তবে দুরূহ। যেমন এখন প্রতিটি লেনদেনের জন্য আলাদা করে ফরম পূরণ করতে হচ্ছে। ফলে জরুরি কাজে কোনো লেনদেন করার প্রয়োজন হলে তখন ব্যাংকের অনুমোদন না হওয়া পর্যন্ত লেনদেন করা সম্ভব হচ্ছে না। ব্যাংক খোলা থাকে আট ঘণ্টা। ফলে এই আট ঘণ্টার মধ্যে সব অনুমোদন নিতে হবে। রাতে তো আর ব্যাংক খোলা থাকবে না। কিন্তু অনেক লেনদেন জরুরি প্রয়োজনে রাতেও করতে হতে পারে।
তথ্য-প্রযুক্তি খাতের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ওই সার্কুলারের ফলে ই-কমার্সভিত্তিক স্থানীয় ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা, ফ্রিল্যান্সার এবং ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে যুক্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এরই মধ্যে বাজারে এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) তাদের উদ্বেগের কথা বাংলাদেশ ব্যাংককে জানিয়েছে।
বিদ্যমান নিয়মে আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারকারী গ্রাহক এককভাবে কোনো পণ্য বা সেবামূল্যের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩০০ ডলার পর্যন্ত পরিশোধের সুযোগ নিতে পারেন।
পেঁয়াজ কিনতে সচিবালয়ের সামনে লম্বা লাইন

পেঁয়াজ কিনতে সচিবালয়ের সামনে লম্বা লাইন

সচিবালয়ের সামনে কম মূল্যে পেঁয়াজ কিনতে নারী-পুরুষ ভিড় জমিয়েছে। 
পল্টন মোড় থেকে প্রেসক্লাবের সামনে আসার রাস্তার পাশে গাড়িতে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। 
সেই পেঁয়াজ কিনতে লাইনে দাঁড়িয়েছেন নারী-পুরুষসহ কয়েকশো মানুষ।

রবিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০১৯

কোরআনের দৃষ্টিতে অর্থ  নীতির বিধান সমূহ

কোরআনের দৃষ্টিতে অর্থ নীতির বিধান সমূহ




                                                     অর্থ নীতি ----
  মানুষ আপনাকে মদও জুয়া সর্ম্পকে প্রশ্ন করে
  বলুন দুটোই মানুষের জন্য পাপ ও উপকার আছে
  ,তবে পাপ উপকার অপেক্ষা বেশি 
  তারা এটা ও জিজ্ঞাস করে কি ব্যয় করবে 
  বলুন যা, উদ্বৃত ও আছে তাই ,এভাবে আল্লহ 
  তোমাদের জন্য আয়াত বর্ণনা করেন 
  যেন তোমরা বেভে দেখ ।
                                             { আল কোরআন সুরা বাকারা আয়াতঃ 219 }
সৎ কর্ম কেবল এটা নয় যে,তোমরা 
মুখ মন্ডল পূর্ব বা পশ্চিম দিকে ফিরাবে 
কিন্তু পূর্ণ আছে ঈমান আনলে ,
আল্লহ ,পরকাল ,ফেরেশতা, ও নবীদের প্রতি 
আর আল্লহর মহবতে অর্থ খরচ করলে ,
আত্মীয় স্বজন ,ইয়াতিম ,পথের কাঙ্গল , ভিক্ষুক ও দাস মুক্তির জন্য 
আর নামায প্রতিষ্ঠা করলে , যাকাত দিলে
ওয়াদা পালন করলে এবং ধর্য ধারন করলে ,
অভাবে ,দুঃখ কষ্ট ও যুদ্ধে এরাই সত্যপরায়ন ।
                                        { আল কোরআন সুরা  বাকারা আয়াত ঃ 177}
  আর যে সম্পদকে আল্লাহ তোমাদের জীবন-যাত্রার অবলম্বন করেছেন, 
  তা অর্বাচীনদের হাতে তুলে দিও না।
  বরং তা থেকে তাদেরকে খাওয়াও, পরাও এবং
  তাদেরকে সান্তনার বানী শোনাও।
    আল কোরআন সুরা নিসা আয়াতঃ 5
পিতা-মাতা ও আত্নীয়-স্বজনদের পরিত্যক্ত সম্পত্তিতে পুরুষদেরও অংশ আছে
এবং পিতা-মাতা ও আত্নীয়-স্বজনদের পরিত্যক্ত সম্পত্তিতে নারীদেরও অংশ আছে; 
অল্প হোক কিংবা বেশী। এ অংশ নির্ধারিত।
                                     {  আল কোরআন সুরা নিসা আয়াতঃ 7 }
হে ঈমানদারগণ! তোমরা একে অপরের সম্পদ অন্যায়ভাবে গ্রাস করো না। 
কেবলমাত্র তোমাদের পরস্পরের সম্মতিক্রমে যে ব্যবসা করা হয় তা বৈধ। 
আর তোমরা নিজেদের কাউকে হত্যা করো না। 
নিঃসন্দেহে আল্লাহ তা’আলা তোমাদের প্রতি দয়ালু।
{ আল কোরআন সুরা নিসা আয়াতঃ 29}
আর তোমরা আকাঙ্ক্ষা করো না এমন সব বিষয়ে যাতে আল্লাহ তা’
আলা তোমাদের একের উপর অপরের শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছেন। 
পুরুষ যা অর্জন করে সেটা তার অংশ এবং নারী যা অর্জন করে সেটা তার অংশ। 
আর আল্লাহর কাছে তাঁর অনুগ্রহ প্রার্থনা কর।
 নিঃসন্দেহে আল্লাহ তা’আলা সর্ব বিষয়ে জ্ঞাত।
                                         {আল কোরআন সুরা নিসা আয়াতঃ 32}
সুতারাং তোমরা ভোগ কর যা, বৈধ ও উত্তম তা থেকে 
এবং আল্লহকে ভয় কর আল্লহ ক্ষমাশীল ও দয়ালু ।
{  আল কোরআন সুরা  আনফাল আয়াত ঃ 69 }
       তাদের সম্পদে প্রার্থী ও বঞ্চিতদের হক আছে ।
{  আল কোরআন সুরা যারিযাত আয়াতঃ 19    }

রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেলো চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেলো চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী





দেশব্যাপী চলমান ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৪ এর আওতায় ফ্রিজ ক্রেতাদেও ‘কে হবেন আজকের মিলিয়নিয়ার’ শীর্ষক সুবিধা দিচ্ছে ওয়ালটন। এর আওতায় সম্প্রতি ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেয়েছেন চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী আনিস উল আলম। আরেকজন ক্রেতা পেয়েছেন ১ লাখ টাকা। 
সম্প্রতি বন্দর নগরীর আগ্রাবাদে ওয়ালটনের পরিবেশক প্রতিষ্ঠান ‘কেএসটিএল এন্টারপ্রাইজ’ এর সাব-ডিলার ‘ভিআইপি ইলেকট্রনিক্স’ থেকে একটি ডিপ ফ্রিজ (ফ্রিজার) কিনেন ব্যবসায়ী আনিস উল আলম। ফ্রিজটি তিনি রেজিস্ট্রেশন করেন। এরপর ওয়ালটনের কাছ থেকে পান ১০ লাখ টাকা পাওয়ার ম্যাসেজ পান। 
এদিকে একই শোরুম থেকে ওয়ালটনের রেফ্রিজারেটর কিনে ১ লাখ টাকা পেয়েছেন একটি বেসরকারি ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানির সিনিয়র মেডিক্যাল প্রোমোশনাল অফিসার ওহিদুর রহমান। 
ওয়ালটনের পক্ষ থেকে নির্বাহী পরিচালক উদয় হাকিম ও আরিফুল আম্বিয়া বিজয়ীদের হাতে চেক তুলে দেন। সেসময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় শিল্পপতি কাজী মনসুর উদ্দিন ও রেজাউল কবীর, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মো. সালাউদ্দিন, কেএসটিএল এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী মো. আব্দুল কাদের খান প্রমূখ। 
ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় ক্রেতা আনিস উল আলম বলেন, ‘খুব ভালো লাগছে। আগে বিভিন্ন কোম্পানির অফারের বিজ্ঞাপন দেখলে ভাবতাম- এগুলো সাধারণ ক্রেতারা পায়না। কোম্পানিরই পছন্দের কাউকে দেয়া হয়। তাই, ওয়ালটনের কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার এসএমএস পেয়ে বিশ্বাস করিনি। এমনকি শোরুমের ম্যানেজার ফোন করে বলার পরও বিশ্বাস হয়নি। কিন্তু, যখন তারা বাসায় এসে বিষয়টি নিশ্চিত করলো, তখন খুশিতে মন ভরে উঠে। 
তিনি আরো বলেন, ওয়ালটন আমাদের গর্ব। এক দশক আগেও ইলেকট্রনিক্স পণ্য কেনার ক্ষেত্রে আমদানির উপর নির্ভর করতো হতো। সেসময় অনেক ক্ষেত্রে বেশি টাকা দিয়েও মানসম্মত পণ্য পেতাম না। এখন ওয়ালটন দেশেই ইলেকট্রনিক্স পণ্য তৈরি করায় সেই আমদানি নির্ভরতা যেমন কমেছে, তেমনি সাশ্রয়ী দামে ভালো মানের পণ্য পাচ্ছি। 
ওয়ালটন ফ্রিজ কেনা প্রসঙ্গে তার স্ত্রী মাহমিদা আলম বেলি বলেন, কয়েক বছর আগে ওয়ালটনের একটি রেফ্রিজারেটর কিনেছিলাম। সেই ফ্রিজটি ভালো সার্ভিস দিচ্ছে। ডিপ অংশে বরফ জমে ভালো। আবার নরমাল অংশে রয়েছে আলাদা শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা। খাবারও গন্ধ হয়না। তাই এবার ডিপ ফ্রিজ কেনার ক্ষেত্রে ওয়ালটনকেই বেছে নিলাম। 
উল্লেখ্য, অনলাইনে দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করতে কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরি করছে ওয়ালটন। সেজন্য সারা দেশে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। ওই ক্যাম্পেইনে ক্রেতাদের উদ্বুদ্ধ করতে ‘কে হবেন আজকের মিলিয়নিয়ার’ সুবিধা ঘোষণা করে ওয়ালটন। এ সুযোগ থাকবে ৩০ শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এর আওতায় ইতোমধ্যেই ২০ জনেরও বেশি ক্রেতা মিলিয়নিয়ার হয়েছেন। অসংখ্য ক্রেতা ১ লাখ টাকা করে পেয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন অঙ্কের নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারসহ ফ্রিজ, টিভি ও নানান ধরনের ইলেকট্রনিক্স পণ্য ফ্রি পেয়েছেন হাজার হাজার ক্রেতা। 

শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ