Saturday, 15 February 2020

করোনাভাইরাস: পাঁচটি দেশ ফিরিয়ে দেবার পর অবশেষে বন্দর পেলো জাহাজটি

করোনাভাইরাস: পাঁচটি দেশ ফিরিয়ে দেবার পর অবশেষে বন্দর পেলো জাহাজটি

দু হাজার যাত্রী সমেত একটি প্রমোদতরীকে অবশেষে ক্যাম্বোডিয়ার বন্দরে ভিড়তে দেয়া হয়েছে।
জাহাজটি দিনের পর দিন সাগরে ভেসে ছিলো, কোন বন্দরই এটিকে ভিড়তে দিচ্ছিল না, কারণ তাদের সন্দেহ ছিলো এই জাহাজের যাত্রীরা করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে দিতে পারে।
'দ্য ওডিসি অব দ্যা এমএস ওয়েস্টারড্যামকে' পাঁচটি দেশের বন্দর থেকে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছিলো।
আরেকটি প্রমোদতরীকে জাপানে কোয়ারেন্টিন করা হচ্ছে কারণ এটিতে ২০০ সংক্রমিত যাত্রী রয়েছে।
কিন্তু ওয়েস্ট্যারড্যামের দুই সহস্রাধিক যাত্রী ও ক্রুর কেউই সংক্রমিত নন।
গত বুধবার প্রমোদতরীটি ব্যাংককের বন্দরে ভিড়তে গেলে এটিকে অনুমতি দেয়া হয়নি।থাইল্যান্ডের নৌবাহিনীর একটি জাহাজ এটিকে এসকর্ট করে নিয়ে যায় এবং থাই উপসাগরে দিয়ে আসে।
পরে জাহাজটি দিক বদল করে ক্যাম্বোডিয়ার দিকে ধাবিত হয়।
বৃহস্পতিবার সকালে জাহাজটি অবশেষে ক্যাম্বোডিয়ার সিহানুকভিল বন্দরে নোঙর করে।
আমেরিকান নাগরিক অ্যাঞ্জেলা জোনস বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, "আমরা কতবার ভেবেছি, এই বুঝি বাড়ি যেতে পারবো, আর সেইসব মুহূর্তে আমাদের ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে"।
"আজকের সকালটাতে যখন ডাঙার দেখা পেয়েছিলাম, সেটা ছিল একটি শ্বাসরুদ্ধকর মুহূর্ত। আমি ভাবছিলাম, এটা কি সত্যি!" বলছিলেন তিনি।
আমেরিকাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হল্যান্ড আমেরিকা লাইন পরিচালনা করে দ্য ওয়েস্টারড্যামকে। এটি গত পয়লা ফেব্রুয়ারি হংকং থেকে যাত্রা শুরু করে।
এটিতে ১,৪৫৫ জন যাত্রী এবং ৮০২ জন ক্রু ছিল।
দুই সপ্তাহ ধরে সাগরে প্রমোদবিহার করার কথা ছিল জাহাজটির।
১৪ দিনের এই বিহার শেষ হয়ে যাওয়ায় জ্বালানী ও খাদ্য সঙ্কট দেখা দেয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়।
থাইল্যান্ড ছাড়াও জাপান, তাইওয়ান, গুয়াম ও ফিলিপিন্স এর আগে বন্দরে ভিড়তে দেয়নি জাহাজটিকে।
ভ্যালেন্টাইন'স ডে বা ভালবাসা দিবস কী এবং কীভাবে এটির উদযাপন শুরু হয়েছিল?

ভ্যালেন্টাইন'স ডে বা ভালবাসা দিবস কী এবং কীভাবে এটির উদযাপন শুরু হয়েছিল?

 ভালবাসা দিবস কীরুন
সেন্ট ভ্যালেন্টাইন'স ডে বা ভালোবাসা দিবস প্রতি বছর ১৪ই ফেব্রুয়ারি পালিত হয়।
এটি সেই দিন যখন একজন মানুষ আরেকজনের প্রতি তার ভালবাসা প্রকাশ করতে ভালোবাসার বার্তাসহ কার্ড, ফুল বা চকলেট পাঠিয়ে থাকে।

কে ছিলেন সেন্ট ভ্যালেন্টাইন?

একজন বিখ্যাত সেইন্ট বা ধর্ম যাজকের নাম থেকে দিনটি এমন নাম পেয়েছে। তবে তিনি কে ছিলেন - তা নিয়ে বিভিন্ন গল্প রয়েছে।
সেন্ট ভ্যালেন্টাইন সম্পর্কে জনপ্রিয় বিশ্বাস হল তিনি খ্রিস্টীয় তৃতীয় শতাব্দীতে রোমের একজন পুরোহিত ছিলেন।
সম্রাট দ্বিতীয় ক্লডিয়াস বিবাহ নিষিদ্ধ করেছিলেন। কারণ তার মনে হয়েছিল, বিবাহিত পুরুষরা খারাপ সৈন্য হয়ে থাকে।
কিন্তু ভ্যালেন্টাইন মনে করেছেন, এটি অন্যায়। তাই তিনি নিয়মগুলো ভেঙ্গে গোপনে বিয়ের ব্যবস্থা করেন।
ক্লডিয়াস যখন এই খবর জানতে পারেন, তখন তার আদেশে ভ্যালেন্টাইনকে কারাগারে নিক্ষেপ করা হয় এবং মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।
কারাগারে থাকা অবস্থায় ভ্যালেন্টাইন কারা প্রধানের মেয়ের প্রেমে পড়েন। ১৪ই ফেব্রুয়ারি যখন তাকে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়, তখন ভ্যালেন্টাইন ওই মেয়েটির উদ্দেশ্যে একটি প্রেমপত্র পাঠিয়ে যান।
যেখানে লেখা ছিল, "তোমার ভ্যালেন্টাইনের পক্ষ থেকে"।

ভ্যালেন্টাইন'স ডে কীভাবে শুরু হয়েছিল?

প্রথম ভ্যালেন্টাইন'স ডে ছিল ৪৯৬ সালে।
একটি নির্দিষ্ট দিনে ভ্যালেন্টাইন'স ডে পালনের বিষয়টি বেশ প্রাচীনকালের ঐতিহ্য, যা রোমান উৎসব থেকে উদ্ভূত বলে মনে করা হয়।
রোমানদের ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে লুপারকালিয়া নামে একটি উৎসব ছিল - আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের বসন্ত মৌসুম শুরু হওয়ার সময়।
উদযাপনের অংশ হিসাবে ছেলেরা একটি বাক্স থেকে মেয়েদের নাম লেখা চিরকুট তোলেন।
যে ছেলের হাতে যেই মেয়ের নাম উঠত, তারা দুজন ওই উৎসব চলাকালীন সময়ে বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ড থাকতেন বলে মনে করা হয়।
অনেক সময় ওই জুটিই বিয়েও সেরে ফেলতেন।
পরবর্তী সময়ে, গির্জা এই উৎসবটিকে খ্রিস্টান উৎসবে রূপ দিতে চেয়েছিল।

ভ্যালেন্টাইন'স ডে কীভাবে শুরু হয়েছিল?

প্রথম ভ্যালেন্টাইন'স ডে ছিল ৪৯৬ সালে।
একটি নির্দিষ্ট দিনে ভ্যালেন্টাইন'স ডে পালনের বিষয়টি বেশ প্রাচীনকালের ঐতিহ্য, যা রোমান উৎসব থেকে উদ্ভূত বলে মনে করা হয়।
রোমানদের ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে লুপারকালিয়া নামে একটি উৎসব ছিল - আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের বসন্ত মৌসুম শুরু হওয়ার সময়।
উদযাপনের অংশ হিসাবে ছেলেরা একটি বাক্স থেকে মেয়েদের নাম লেখা চিরকুট তোলেন।
যে ছেলের হাতে যেই মেয়ের নাম উঠত, তারা দুজন ওই উৎসব চলাকালীন সময়ে বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ড থাকতেন বলে মনে করা হয়।
অনেক সময় ওই জুটিই বিয়েও সেরে ফেলতেন।
পরবর্তী সময়ে, গির্জা এই উৎসবটিকে খ্রিস্টান উৎসবে রূপ দিতে চেয়েছিল।

Thursday, 6 February 2020

ওরা দুই জন

ওরা দুই জন


ওরা দুই জন

ওমর ফারুক 

এক জন গম্ভীর আরেক জন চঞ্চল ;
একজন সব কিছুকে সহজ ভাবে ,,
অন্য জন সবার মাঝে প্যাচ ধরে !
এক জনের বিপদে অন্য জন হাঁসে ,,
তবুও তারা এক নীড়ে থাকে ।

ওরা দুই জন জন ,,

ওদের পিতা এক মাতা এক -
স্বভাবটা শুধু ভিন্ন ।
এক জনে -অন্য জনের নামে নালিশ -
সামান্য কিছুতেই বাধে দন্ধ ,,

ওরা দুই জন -তবুও তারা অন্তর অঙ্গ ।

ওরা দুই জন ,,

এক জন উপকারী অন্য জন উপহাসি ।

এক জন কাজের -অন্যটা অলস ।
এক জন চতুর অন্যটা হাবা,,
এক জন বিচক্ষন অন্য জন গাদা ,,
তবুও তারা এক নীড়ে থাকে ,,
ওদের পিতা এক মাতা এক -
স্বভাবটা শুধু ভিন্ন ।
 

Monday, 3 February 2020

ট্রাম্পের ‘শান্তি পরিকল্পনা’ ওআইসির প্রত্যাখ্যান

ট্রাম্পের ‘শান্তি পরিকল্পনা’ ওআইসির প্রত্যাখ্যান

ফিলিস্তিন সমস্যা নিরসনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্প্রতি ‘মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা’ নামে যে রূপরেখা প্রকাশ করেছেন তা প্রত্যাখ্যান করেছে মুসলিম দেশগুলোর বৈশ্বিক জোট ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি)।
এর আগে গত শনিবার আরব দেশসমূহের জোট আরব লীগ ট্রাম্পের ওই পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করে।
কথিত ওই শান্তি পরিকল্পনার পর ৫৭ রাষ্ট্র নিয়ে গঠিত এই মুসলিম জোট সৌদি আরবের জেদ্দা শহরে সোমবার এক জরুরি বৈঠক করে।
বৈঠক শেষে বিবৃতিতে ওআইসি জানিয়েছে, তারা জোটের সব সদস্য রাষ্ট্রকে এই পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত না হওয়া এবং পরিকল্পনা বাস্তবায়নে মার্কিন প্রশাসনকে সহযোগিতা না করার আহ্বান জানিয়েছে।
ফিলিস্তিন নেতৃত্বের অনুরোধে সোমবার জরুরি বৈঠকে বসে ওআইসি। এর দুদিন আগে গত শনিবার একইভাবে এক জরুরি বৈঠক শেষে ট্রাম্পের কথিত শান্তি পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করে তা বাস্তবায়নে কোনোভাবে সহযোগিতা না করার আহ্বান জানায় ২২ আরব দেশের সমন্বয়ে গঠিত জোট আরব লীগ।
এর আগে রোববার ওআইসি এক টুইটার বিবৃতিতে ঘোষণা দেয়, প্রত্যেক সদস্য রাষ্ট্রের পররাষ্ট্র পর্যায়ের প্রতিনিধিদের নিয়ে জোটের নির্বাহী কমিটির এক জরুরি বৈঠক আহ্বান করা হয়েছে। বৈঠকে মার্কিন প্রশাসনের ঘোষিত ‘মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা’ নিয়ে আলোচনা করে জোটের অবস্থান জানানো হবে।
ফিলিস্তিন সমস্যা নিরসনে ‘মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা’ নামে গত মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে রূপরেখা উন্মোচন করেছেন সেটাকে একপাক্ষিক অভিহিত করে তা প্রত্যাখ্যান করেছে আরব লীগ। মিসরের রাজধানী কায়রোতে জরুরি বৈঠক শেষে গত শনিবার এই জোট ট্রাম্পের চুক্তিটি প্রত্যাখ্যানের ঘোষণা দেয়।
ট্রাম্প প্রশাসন এই চুক্তিকে ‘শতাব্দীর সেরা চুক্তি’ বললেও আরব জোট তাদের বিবৃতিতে চুক্তিকে ‘শতাব্দীর সেরা যুক্তরাষ্ট্র-ইসরাইল চুক্তি’ হিসেবে অভিহিত করেছে। ট্রাম্পের মস্তিষ্ক উৎসারিত এই চুক্তিকে একপাক্ষিক অভিহিত করে জোটটি বলছে, ট্রাম্পের ওই চুক্তিতে ফিলিস্তিনের মানুষের ন্যূনতম অধিকার ও আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটেনি।
কথিত এই শান্তি চুক্তি কোনোভাবেই শান্তির লক্ষ্যে তৈরি করা হয়নি আর এই চুক্তি বাস্তবায়নে কোনোভাবেই মার্কিন প্রশাসনকে সহায়তা না করার ঘোষণা দিয়েছে আরব লীগ। ইসরাইল ক্ষমতার জোরে এই পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করতে পারবে না এবং মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম এই সংকট সমাধানে দুই রাষ্ট্র সমাধানের ওপর জোর দিয়েছে জোটটি।
পূর্ব জেরুসালেমকে ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে আরব লীগ। কিন্তু হোয়াইট হাউসে হাস্যোজ্জ্বল ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর উপস্থিতিতে ট্রাম্প তার পরিকল্পনায় জেরুসালেমকে ইসরাইলের ‘অবিভক্ত রাজধানী’ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার প্রতিশ্রুতি দেন। ইসরাইল সাধুবাদ জানালেও ফিলিস্তিন এই চুক্তি আগে থেকেই প্রত্যাখ্যান করে আসছে।
উল্লেখ্য, ট্রাম্পের কথিত শান্তি পরিকল্পনাটিতে ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের জন্য একের পর কঠিন শর্ত পালনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পাশাপাশি ইসরাইলের দখলকৃত ফিলিস্তিনি অঞ্চলগুলোতে ইসরাইলি সার্বভৌমত্ব গড়ে তোলার ঘোষণাও দিয়েছেন ট্রাম্প।
চার মহাদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম দেশ নিয়ে ওআইসি গঠিত। জাতিসংঘের পর এটাই বিশ্বের বৃহৎ আন্তঃরাষ্ট্রীয় সংস্থা। সংস্থাটির সদস্য রাষ্ট্রগুলোর জনসংখ্যা প্রায় দুইশ কোটি। অধিকাংশ দেশ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ হলেও উল্লেখযোগ্যসংখ্যক মুসলিম জনসংখ্যার কিছু আফ্রিকান ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশও এই জোটের সদস্য। আল জাজিরা।
ট্রাম্পের শান্তিচুক্তি সমর্থন হারাম : ফিলিস্তিনি ওলামা পরিষদ

ট্রাম্পের শান্তিচুক্তি সমর্থন হারাম : ফিলিস্তিনি ওলামা পরিষদ

মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কথিত ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’ বা শতাব্দীর সেরা সমঝোতায় সমর্থন দেয়া হারাম বলে ফতোয়া দিয়েছে ফিলিস্তিনের সর্বোচ্চ ওলামা পরিষদ।
শনিবার গাজার আল আমরি গ্র্যান্ড মসজিদে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ফিলিস্তিনি আলেমদের বৃহৎ প্লাটফর্ম এই ফতোয়া প্রদান করে। ফতোয়ায় তাদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছে দেশটির আরও একাধিক সংগঠন।
সংহতি জানাতে সম্মেলনে ফিলিস্তিনের ইসলামি আওক্বাফ, ইসলামি জিহাদ ও ইবনে বায পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজন সদস্যও উপস্থিত হয়েছিলেন। পৃথক পৃথক ব্রিফিংয়ে বক্তারা ট্রাম্পের তথাকথিত শতাব্দীর সেরা চুক্তির কঠোর বিরোধিতা করেন।
তারা বলেন, ফিলিস্তিনি জনগণ ও তার রাজধানী আল কুদসের ওপর ট্রাম্পের কথিত এই অশুভ শান্তিচুক্তি গর্হিত অপরাধ। ধর্মীয় ও জাতীয় দৃষ্টিকোন থেকে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা অত্যাবশ্যকীয় (ওয়াজিব)।
যারাই এই চুক্তিতে অংশ নিয়েছে এবং সমর্থন দিয়েছে, তারা আল্লাহ, আল্লাহর রাসুল, মুসলিম উম্মাহ ও ফিলিস্তিনি জনগণের নিকট খেয়ানতদার সাব্যস্ত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তারা।
ফিলিস্তিনি ওলামা পরিষদ গোটা বিশ্বের আলেমদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি সমর্থনের আহবান জানিয়ে কথিত শান্তিচুক্তির সমর্থন হারাম ঘোষণা দেয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেছে। যার যার সামর্থ অনুযায়ী এই চুক্তির বিরোধিতা করার যথাসাধ্য চেষ্টা করে মুসলিম উম্মাহর প্রতি পরিষদের তরফ থেকে আহবান জানানো হয়।
এছাড়া বিরোধীশক্তির মোকাবেলার জন্য ফিলিস্তিনি নেতাকর্মীদের অভ্যন্তরীণ মতানৈক্য ভুলে এক হওয়ার আহবান জানিয়েছে ফিলিস্তিনের ওলামা পরিষদ। মাআ নিউজ এজেন্সি।
সেই বাউল রিতা দেওয়ানের বিরুদ্ধে ২টি মামলা

সেই বাউল রিতা দেওয়ানের বিরুদ্ধে ২টি মামলা

সেই বাউল রিতা দেওয়ানের বিরুদ্ধে ২টি মামলা

 বাউল শিল্পী রিতা দেওয়ানের বিরুদ্ধে আজ সোমবার আদালতে দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ঢাকা সিএমএম আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন নির্মাতা ও অভিনেতা রাসেল মিয়া। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অভিযোগে এ মামলা দায়ের করা হয়। বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে আগামী ৩ মার্চ প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী।
অন্যদিকে, বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে সোমবার ঢাকা আইনজীবী সমিতির সদস্য মো: ইমরুল হাসান ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।
উল্লেখ্য, সম্প্রতি একটি পালা গানের আসরে প্রতিপক্ষকে আক্রমণ করতে গিয়ে রিতা দেওয়ান মহান আল্লাহকে নিয়ে রুচিহীন মন্তব্য করেন। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়। অনেকে রিতা দেওয়ানের শাস্তি দাবি করেন।
অন্য মামলায় অভিযোগে বলা হয়, পালা গানে আল্লাহকে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাটি দায়ের করেন। সম্প্রতি শরিয়ত বয়াতি নামক এক বাউল শিল্পী পালা গানের আসরে ইসলামে গান বাজনা জায়েজ বলে মন্তব্য করেন। পাশাপাশি তিনি আল্লাহ-রাসূল (সা.) ও ইসলাম নিয়ে আপত্তিকর কথা বলেন। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলা হয়। বিক্ষোভের মুখে তাকে গ্রেফতার করে টাঙ্গাইল পুলিশ। বর্তমানে তিনি কারাগারে আছেন।
জুটমিলের জায়গা দখলের মামলা, আসামি যুবলীগ নেতা

জুটমিলের জায়গা দখলের মামলা, আসামি যুবলীগ নেতা

মামলার আইনজীবী এনামুল হক গাজী জানান, আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।
মামলার আসামি সাজ্জাদুর রহমান লিঙ্কন যুবলীগের খুলনা মহানগরের খানজাহান আলী থানা কমিটির আহ্বায়ক এবং খুলনা জেলা পরিষদের সদস্য।
মামলায় জমি জবর দখল ও জীবননাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে বলেও এনামুল হক গাজী জানান।মলার আবেদনে বলা হয়েছে, সাজ্জাদুর রহমান লিঙ্কন অ্যাজাক্স জুটমিলের জায়গা দখলে নিয়ে বিভিন্ন সার ব্যবসায়ীদের ভাড়া দিয়েছেন। একদিকে মিলের জমি দখলে নিয়ে ভাড়া দেওয়া এবং অন্যদিকে সারের প্রতিক্রিয়ায় মিলের কল-কারখানা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।
মামলার বাদী অ্যাজাক্স জুট মিলের প্রধান নির্বাহী ও চেয়ারম্যান কাওসার জামান বাবলা বলেন, ইতিমধ্যে তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ, খুলনার জেলা প্রশাসক, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, পুলিশ সুপার খুলনাসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন।
অগ্রগতি না হওয়ায় আদালতে মামলা দায়ের করেছেন বলে তিনি জানান।
মহানগর যুবলীগ আহবায়ক শফিকুর রহমান পলাশ বলেন, তারা লিঙ্কনের মিল দখল বা মামলার কথা জানেন না। যুবলীগের যে কেউ কোনো অন্যায় করলে তার দায় যুবলীগ নেবে না।