Wednesday, 25 March 2020

বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতা দিবস

বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতা দিবস

বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতা দিবস পালিত হবে বৃহস্পতিবার। কিন্তু নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাবের কারণে এবছর স্বাধীনতা দিবসের সকল কর্মসূচি বাতিল করেছে সরকার।
১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ মধ্যরাতে নিরস্ত্র বাঙালির বিরুদ্ধে পাকিস্তান দখলদার বাহিনীর হত্যাযজ্ঞের পর ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
৩০ লাখ মানুষের প্রাণ এবং ২ লাখ নারীর সম্ভ্রমের বিনিময়ে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর অবশেষে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর স্বাধীনতা অর্জন করে বাংলাদেশ।
দিবসটির প্রাক্কালে পৃথক বাণীতে দেশ-বিদেশে থাকা সকল বাংলাদেশিকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভ্যর্থনা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তার বাণীতে বলেন, নানা ষড়যন্ত্র করেও বাঙালির মুক্তিসংগ্রামকে প্রতিহত করতে না পেরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ বাঙালিদের নিশ্চিহ্ন করতেই ২৫ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত পাকিস্তানি হানাদারেরা এ দেশের গণমানুষের ওপর নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিল।
তিনি বলেন, সব বাধা পেরিয়ে মুক্তিযুদ্ধের মন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে বাংলাদেশ আজ উন্নতি আর সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে চলেছে। ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত, বৈষম্যহীন ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়ার প্রত্যয়ে দেশ আজ ঐক্যবদ্ধ ও দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।
এবছর জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপিত হবে। বাংলাদেশকে ২০৪১ সালে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘রূপকল্প-২০২১’ ও ‘রূপকল্প-২০৪১’ ঘোষণা করেছেন। এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নে আমি দলমত নির্বিশেষে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে অবদান রাখার আহ্বান জানাই, বলেন রাষ্ট্রপতি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাণীতে বলেন, ভিশন-২০২১, ভিশন-২০৪১ এবং ডেল্টা প্লান-২১০০ বাস্তবায়নের মাধ্যমে আমরা জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।
বাণীতে, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার মাধ্যমে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য বাংলাদেশকে একটি নিরাপদ ও শান্তিপূর্ণ দেশ হিসাবে গড়ে তোলার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।
এ দিবস উপলক্ষে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করবে জাতীয় দৈনিকগুলো। এছাড়া বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন, বেসরকারি রেডিও স্টেশন এবং টেলিভিশন চ্যানেলগুলো স্বাধীনতা দিবসের বিশেষ তাৎপর্য তুলে ধরে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করবে।
তবে সরকার এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা- ডব্লিউএইচ’র নির্দেশনা অনুসরণ করে জনসমাগম এড়াতে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে এবারের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে নিজেদের সকল কর্মসূচি স্থগিত করেছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও পেশাদার সংগঠন।  সূত্র : ইউএনবি
কতক্ষণ বেঁচে থাকে করোনার জীবাণু

কতক্ষণ বেঁচে থাকে করোনার জীবাণু

কোভিড-১৯ এর জন্যে দায়ী ভাইরাসটি কতক্ষণ বেঁচে থাকতে পারে তা নির্ভর করে এটি কোন ধরনের বস্তুর গায়ে পড়েছে তার ওপর। বিজ্ঞানীরা বলছেন, দরজার শক্ত হাতল, লিফটের বাটন এবং কিচেন ওয়ার্কটপের মতো শক্ত জিনিসের গায়ে প্রায় ৪৮ ঘণ্টা টিকে থাকতে পারে। তবে এর আগের গবেষণায় দেখা গেছে সহায়ক পরিবেশে সব ধরনের করোনাভাইরাস এক সপ্তাহও বেঁচে থাকতে পারে।
তবে কাপড়ের মতো নরম জিনিসের গায়ে এটি এতো লম্বা সময় বেঁচে থাকতে পারে না। ফলে আপনি যে কাপড়টি পরেছেন এবং তাতে যদি ওই ভাইরাসটি থাকে, জামাটি একদিন কিম্বা দুদিন না পরলে সেখানে ভাইরাসটি জীবিত থাকার আর সম্ভাবনা নেই।
মনে রাখতে হবে, কোভিড-১৯ এর ভাইরাসটি লেগে আছে এরকম জিনিসে শুধু স্পর্শ করলেই আপনি আক্রান্ত হবেন না। শুধু স্পর্শ করার পর আপনি যদি হাত দিয়ে মুখ, নাক অথবা চোখ স্পর্শ করেন তাহলেই এই ভাইরাসটি আপনার শরীরে ঢুকে পড়বে। তাই এই ভাইরাসটি প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ একটি করণীয় হচ্ছে হাত দিয়ে মুখ স্পর্শ না করা।
কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, সার্স ও মার্সের ভাইরাস লোহা, কাঁচ এবং প্লাস্টিকের গায়ে ৯ (নয়) দিন পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। আবার কোনো কোনো ভাইরাস ঠাণ্ডা জায়গায় ২৮ দিনও বেঁচে থাকতে পারে।
যুক্তরাষ্ট্রে ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ হেলথের একজন ভাইরোলজিস্ট নিলৎজে ফান ডোরমালেন তার সহকর্মীদের নিয়ে গবেষণা চালিয়ে দেখেছেন কোভ-২ বা সার্স ভাইরাস কতক্ষণ বেঁচে থাকতে পারে। তাতে দেখা গেছে, কাশি দেওয়ার পর থেকে ড্রপলেটের মধ্যে এই ভাইরাসটি তিন ঘণ্টা পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে।
ক্ষুদ্র ড্রপলেটে, যার আকার ১ থেকে ৫ মাইক্রোমিটার (মানুষের চুলের ৩০ গুন চিকন) সার্স ভাইরাস কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত বেঁচে থাকে। তবে গবেষণায় দেখা গেছে কোভ-২ ভাইরাস কার্ডবোর্ডের মতো শক্ত জিনিসের ওপর ২৪ ঘণ্টা আর প্লাস্টিকের জিনিসের গায়ে দুই থেকে তিন দিনও বেঁচে থাকতে পারে।
বৈশ্বিক মহামারি ‍করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শুক্রবার পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৪৮ জনে। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন বিশ্বের ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬৩০ জন। এদের মধ্যে বর্তমানে ১ লাখ ৪৭ হাজার ১৪৫ জন বর্তমানে চিকিৎসাধীন এবং ৭ হাজার ৩৭৮ জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন।
গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে তিনজনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। ওই দিজন সুস্থ্য হলেও পরবর্তীতে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজন মারা যায়। শুক্রবার পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২০ জন। সূত্র: বিবিসি

Tuesday, 3 March 2020

Saturday, 29 February 2020

Saturday, 15 February 2020

মাগুরায় গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত ১৫, আটক ৩

মাগুরায় গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত ১৫, আটক ৩



মঘি ইউনিয়নের ধনপাড়া গ্রামে শনিবার সকালে আধিপত্য বিস্তারের জেরে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে বলে সদর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জানিয়েছেন।
বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, মঘি ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশিক বিশ্বাস ও একই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মিজানুর রহমানের লোকজনের মধ্যে গ্রামে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টায় দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।
এর জেরে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে শনিবার সকালে দুই পক্ষের লোকজন ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায়।
ওসি সাইফুল বলেন, হামলা-পাল্টা-হামলায় উভয় পক্ষের ১৫ জন কমবেশি আহত হন। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত আটজনকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। সংঘর্ষে ছয়-সাতটি বাড়ি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ করে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ তিনজনকে আটক করেছে।
 সমগ্র বাংলাদেশ  বগুড়ায় গৃহবধূকে ধর্ষণে স্বামীর সহযোগিতার অভিযোগ

সমগ্র বাংলাদেশ বগুড়ায় গৃহবধূকে ধর্ষণে স্বামীর সহযোগিতার অভিযোগ

তাকে বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
২৪ বছর বয়সী এই গৃহবধূ বগুড়া শহরের চকলোকমান এলাকায় ভাড়া বাড়িতে শিশুসন্তানকে নিয়ে থাকতেন। তার স্বামী সম্প্রতি তার সঙ্গে থাকতেন না।
গৃহবধূ বলেন, নয় বছর আগে বগুড়ার গাবতলি উপজেলার মালিয়ানডাঙ্গা দক্ষিণ পাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের পর তাদের বিয়ে হয়। সম্প্রতি রফিবকুল তাকে তালাক দেওয়ার জন্য চাপ দেন।
তার অভিযোগ, শনিবার দুপুরের দিকে রফিকুল ও তার এক বন্ধু এসে হঠাৎ করে তার হাত-মুখ বেঁধে মারধর করেন।
“এরপর রফিকুলের বন্ধু আমাকে ঘরের মধ্যে ধর্ষণ করে। আর রফিকুল ঘরের বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়।”
গৃহবধূ বলেন, “ধর্ষণের পর দুই বন্ধু আমার গায়ে ব্লেড দিয়ে কেটে আহত করে। একপর্যায়ে তারা আমার মাথার চুল কেটে দেয়। গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আমার চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এসে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।
“এ সময় বাড়িতে আমি একা ছিলাম। আমার আট বছর বয়সী মেয়ে স্কুলে ছিল।”
শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি বিভাগের কর্মকর্তা হারুনুর রশিদ বলেন, তার গায়ে ধারালো অস্ত্রের তিন-চারটা আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এক জায়গায় পুড়ে গেছে। মাথার কয়েক জায়গায় চুল কাটা দেখা গেছে। তবে তিনি আশঙ্কামুক্ত। তাকে ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে রাখা হয়েছে। পরে তাকে গাইনি ওয়ার্ডে নেওয়া হবে।
এ বিষয়ে বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সনাতন চক্রবর্তী বলেন, “ঘটনা একটি ঘটেছে এটা সত্য। ওই ঘটনার পেছনে কোনো ঘটনা আছে কিনা, স্বামী জড়িত কিনা কিংবা অন্য কেউ ঘটনার সাথে যুক্ত কিনা তা ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। অধিকতর তদন্ত ছাড়া এ মূহর্তে কিছু বলা যাচ্ছে না। কাল-পরশুর মধ্যে বিষয়টি পরিষ্কার করা সম্ভব হবে।”
করোনাভাইরাস: পাঁচটি দেশ ফিরিয়ে দেবার পর অবশেষে বন্দর পেলো জাহাজটি

করোনাভাইরাস: পাঁচটি দেশ ফিরিয়ে দেবার পর অবশেষে বন্দর পেলো জাহাজটি

দু হাজার যাত্রী সমেত একটি প্রমোদতরীকে অবশেষে ক্যাম্বোডিয়ার বন্দরে ভিড়তে দেয়া হয়েছে।
জাহাজটি দিনের পর দিন সাগরে ভেসে ছিলো, কোন বন্দরই এটিকে ভিড়তে দিচ্ছিল না, কারণ তাদের সন্দেহ ছিলো এই জাহাজের যাত্রীরা করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে দিতে পারে।
'দ্য ওডিসি অব দ্যা এমএস ওয়েস্টারড্যামকে' পাঁচটি দেশের বন্দর থেকে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছিলো।
আরেকটি প্রমোদতরীকে জাপানে কোয়ারেন্টিন করা হচ্ছে কারণ এটিতে ২০০ সংক্রমিত যাত্রী রয়েছে।
কিন্তু ওয়েস্ট্যারড্যামের দুই সহস্রাধিক যাত্রী ও ক্রুর কেউই সংক্রমিত নন।
গত বুধবার প্রমোদতরীটি ব্যাংককের বন্দরে ভিড়তে গেলে এটিকে অনুমতি দেয়া হয়নি।থাইল্যান্ডের নৌবাহিনীর একটি জাহাজ এটিকে এসকর্ট করে নিয়ে যায় এবং থাই উপসাগরে দিয়ে আসে।
পরে জাহাজটি দিক বদল করে ক্যাম্বোডিয়ার দিকে ধাবিত হয়।
বৃহস্পতিবার সকালে জাহাজটি অবশেষে ক্যাম্বোডিয়ার সিহানুকভিল বন্দরে নোঙর করে।
আমেরিকান নাগরিক অ্যাঞ্জেলা জোনস বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, "আমরা কতবার ভেবেছি, এই বুঝি বাড়ি যেতে পারবো, আর সেইসব মুহূর্তে আমাদের ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে"।
"আজকের সকালটাতে যখন ডাঙার দেখা পেয়েছিলাম, সেটা ছিল একটি শ্বাসরুদ্ধকর মুহূর্ত। আমি ভাবছিলাম, এটা কি সত্যি!" বলছিলেন তিনি।
আমেরিকাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হল্যান্ড আমেরিকা লাইন পরিচালনা করে দ্য ওয়েস্টারড্যামকে। এটি গত পয়লা ফেব্রুয়ারি হংকং থেকে যাত্রা শুরু করে।
এটিতে ১,৪৫৫ জন যাত্রী এবং ৮০২ জন ক্রু ছিল।
দুই সপ্তাহ ধরে সাগরে প্রমোদবিহার করার কথা ছিল জাহাজটির।
১৪ দিনের এই বিহার শেষ হয়ে যাওয়ায় জ্বালানী ও খাদ্য সঙ্কট দেখা দেয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়।
থাইল্যান্ড ছাড়াও জাপান, তাইওয়ান, গুয়াম ও ফিলিপিন্স এর আগে বন্দরে ভিড়তে দেয়নি জাহাজটিকে।